কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিলেন ইভান দুকে

কলম্বিয়ার ৬০তম প্রেসিডেন্ট শপথ গ্রহণ করেছেন ইভান দুকে।  ৫৪ শতাংশ ভোট পেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী গুস্তাভো পেত্রোকে হারিয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। দেশটির চলমান শান্তি প্রক্রিয়ায় তিনি কিরকম প্রভাব ফেলবেন সে বিষয়ে ব্যাপক উদ্বেগ দেখা দিয়েছে, এমন সময় তিনি শপথ গ্রহণ করলেন।
খবরে বলা হয়, দেশকে একত্রিত করার এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির হার বাড়ানোর অঙ্গীকার নিয়ে শপথ গ্রহণ করেন দুকে। চলতি বছরের জুনে কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বামপন্থী প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে তিনি বিজয়ী হয়েছিলেন।
শপথ অনুষ্ঠানে ইভান দুকে বক্তৃতায় বলেন, সকল দুর্নীতি মোকাবেল করে দেশের অর্থনীতির উদ্দীপনাকে পরিবর্তন করতে হবে। এছাড়া সকল দল বা বিদ্রোহী গ্রুপকে একত্র করে নতুন কলম্বিয়া গঠনের আশা ব্যক্ত করেন তিনি।
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দুকে’র সম্পর্ক বেশ ভালো বলছেন বিশেষজ্ঞরা। তার জয়ের পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাকে মাদক পাচারের বিরুদ্ধে সরাসরি লড়াইয়ে স্বাগতম জানিয়েছেন।
দুকে সাংবাদিকদের বলেন, আজকে আমি মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে একটি ফোনকল পেয়েছি। তিনি গত নির্বাচনে জয়ী হওয়ায় আমাদের অভিনন্দন জানিয়েছেন। এছাড়া আমাদের দেশের প্রতি তার নিরাপত্তা, ন্যায় বিচার ও মাদক পাচার-বিরোধী লড়াইয়ে তার প্রতিশ্রুতি রক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের সঙ্গেও কথা বলেছেন দুকে। তার ভাষ্যমতে, তারা দু’জন মাদক যুদ্ধ ত্বরান্বিত করা নিয়ে আলোচনা করেছেন ও ভেনেজুয়েলার ওপর আরো চাপ সৃষ্টি করা নিয়ে আলোচনা করেছেন।
কলম্বিয়ার বেসামরিক বিমানচালনা কর্তৃপক্ষ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের এলাকায় সকল প্রকারের ড্রোন প্রবেশ নিষিদ্ধ করে দিয়েছে। শনিবার ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর ওপর এক অনুষ্ঠানে ড্রোন হামলার অভিযোগ ওঠার পরই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়।
মাদুরো দাবি করেছেন, তার ওপর হামলার পেছনে কলম্বিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র জড়িত। তিনি অবশ্য হামলার জন্য বর্তমান প্রেসিডেন্ট হুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোসের দিকে আঙুল তুলেন। তবে সান্তোস তার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন।