শনিবারও বাস নেই রাজধানীতে

শনিবারও পরিবহণশূন্য অবস্থায় রয়েছে রাজধানী। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরশেনের (বিআরটিসি) অল্প কিছু বাস চলাচল করলেও ব্যক্তি মালিকানার কোনো যাত্রীবাহী বাস চলছে না। তবে সড়কে রিকশা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস চলাচল করছে। যদিও সেগুলোতে তারা ভাড়া আদায় করা হচ্ছে দ্বিগুন। এই সংকটের সুযোগে দ্বিগুণ ভাড়া নিচ্ছে রাইড শেয়ারিং পরিবহণগুলোও।

শনিবার সকাল সোয়া ৮টা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন পথ ঘুরে এই নৈরাজ্যকর চিত্র দেখা গেছে।

বিভিন্ন পয়েন্টে দেখা গেছে, বিভিন্ন গন্তব্যের শত শত মানুষ রাস্তায় দাঁড়িয়ে আছেন বা হাঁটছেন। রাইড শেয়ারিং যান, রিকশা বা অটোরিকশা, বিআরটিসির বাসে বা যেভাবেই হোক, গন্তব্যে যাওয়ার চেষ্টা করছেন তারা।

রোকেয়া সরণি, মিরপুর রোড, সাতমসজিদ রোড, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, মানিক মিয়া এভিনিউ, প্রগতি সরণি, এলিফ্যান্ট রোড ঘুরে কোনো গণপরিবহন দেখা যায়নি।

গত ২৯ জুলাই দুপুরে রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের অদূরে বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। ওইদিন জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস তাদের চাপা দেয়। নিহতরা হলো দিয়া খানম মীম ও আব্দুল করিম। এ সময় বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়।

এ ঘটনায় রাজপথে নেমে ৯ দফা দাবি জানায় শিক্ষার্থীরা। গত পাঁচ দিন ধরে শিক্ষার্থীরা রাজধানীর সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ করে আসছে।