ওয়েলসের জালে স্পেনের ৪ গোল

রাশিয়া বিশ্বকাপে কাটানো খারাপ সময় পেছনে ফেলে যেন দুর্বার হয়ে উঠেছে স্পেন। ওয়েলসকে তাদেরই মাঠে উড়িয়ে দিয়েছে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

কার্ডিফে জাতীয় স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার রাতের ম্যাচটি ৪-১ গোলে জিতে স্পেন।

রাশিয়া বিশ্বকাপের শেষ ষোলো থেকে ছিটকে পড়ার পর টানা তিনটি ম্যাচ জিতলো স্প্যানিশরা। গত মাসে উয়েফা নেশন্স লিগে ইংল্যান্ডের মাঠে ২-১ গোলে জেতার পর ঘরের মাঠে প্রীতি ম্যাচে ক্রোয়েশিয়াকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

ম্যাচের প্রথম মিনিট থেকে রক্ষণে চাপ ধরে রাখা স্পেন এগিয়ে যায় অষ্টম মিনিটে। ডি-বক্সে সাউল নিগেসের ছোট পাস ধরে ডান পায়ের জোরালো শটে কাছের পোস্ট ঘেঁষে জাল খুঁজে নেন পাকো আলকাসের।

১৯তম মিনিটে এসি মিলান ফরোয়ার্ড সুসোর ফ্রি-কিকে বল ছোট ডি-বক্সের মুখে ফাঁকায় পেয়ে হেডে জালে জড়ান সের্হিও রামোস।
জোড়া গোলের ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই তৃতীয় গোল খেয়ে বসে ওয়েলস। ২৯তম মিনিটে আরও একবার রক্ষণের ভুলে ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়ে উঁচু শটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের ফরোয়ার্ড আলকাসের।

২০০৬ সালের অক্টোবরে স্লোভাকিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের পর এই প্রথম ঘরের মাঠে কোনো ম্যাচের প্রথমার্ধে তিন গোল খেল ওয়েলস। এক যুগ আগের ম্যাচটি ৫-১ ব্যবধানে হেরেছিল তারা।

৩৫তম মিনিটে ম্যাচের প্রথম সুযোগটি পায় ওয়েলস। মিডফিল্ডার হ্যারি উইলসনের হেড পোস্টের উপরের অংশের বাইরের দিকে লাগে।

দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে ডিফেন্ডারদের পেছনে ফেলে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন আলভারো মোরাতা। ছুটে এসে তাকে রুখে দেন গোলরক্ষক। ৫৮তম মিনিটে সুসোর শট গোলরক্ষককে পরাস্ত করলেও ক্রসবারে বাধা পায়।
৭৪তম মিনিটে ব্যবধান আরও বাড়ান মার্ক বার্ত্রা। সুসোর কর্নারে লাফিয়ে নেওয়া হেডে লক্ষ্যভেদ করেন রিয়াল বেতিসের এই সেন্টার-ব্যাক। জাতীয় দলের হয়ে চতুর্দশ ম্যাচে এসে প্রথম গোল করলেন বার্সেলোনার সাবেক খেলোয়াড়।

শেষ দিকে একমাত্র সান্ত্বনাসূচক গোলটি পায় স্বাগতিকরা। ৮৯তম মিনিটে হেডে গোলটি করেন বার্নলির ফরোয়ার্ড স্যাম ভোকস।

আরেক প্রীতি ম্যাচে ইরাককে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা।

আর উয়েফা নেশন্স লিগে পোল্যান্ডের মাঠে ৩-২ গোলে জিতেছে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে ছাড়া খেলতে নামা পর্তুগাল।