ঘূর্নিঝড় টিটলি’র প্রভাবে বঙ্গোপসাগর উত্তাল।। নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি শিক্ষার্থীসহ দূর্ভোগে হাজারো মানুষ

সোলায়মান পিন্টু,কলাপাড়া(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি।। ঘূর্নিঝড় টিটলি’র প্রভাবে কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর এখনও উত্তাল রয়েছে। বড়বড় ঢেউ সৈকতে আছড়ে পড়ছে।

স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে উপকূলের বিভিন্ন নদ-নদীর পানি ৪/৫ ফুট বৃদ্ধি পেয়েছে। পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার বিভিন্ন পয়েন্টের ভাঙ্গা বেরিবাঁধ দিয়ে পানি প্রবেশ করে প্লাবিত হয়েছে গ্রামের পর গ্রাম। পানি বন্দি রয়েছে কয়েক হাজার মানুষ। প্লাবিত হওয়া এলাকার শিক্ষার্থীরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে পারছেনা।

গত দু’দিন ধরে দফায় দফায় দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারী ধরনের বৃষ্টিপাত হয়েছে। সাগরে মাছ ধরার ট্রলার না থাকায় কোন ধরনের দূর্ঘটনা ঘটেনি বলে স্থানীয় জেলেরা জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপকূলের বিভিন্ন ভাঙ্গা বেরিবাধঁ দিয়ে পানি প্রবেশ করে প্লাবিত হয়েছে বহু গ্রাম। কৃষকদের ফসল তলিয়ে রয়েছে পানির নিচে। মাছের ঘের ডুবে যাওয়ায় লোকশানের মুখে পরেছে মৎস্য চাষিরা।

বেরিবাধঁ ও উচুঁ জমি হয়েছে গবাদি পশুর চারন ভূমি। মহিপুর থানার নিজামপুর গ্রামের বাসিন্দা মনিরুল ইসলাম জানান, নিজামপুর বেরীবাঁধের ভাঙ্গা অংশ দিয়ে প্রতিদিন দুই দফা জোয়ারের পানি প্রবেশ করে পাঁচ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।এ ছাড়া নিজামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টিতে যাতায়েতে পথ ও স্কুল মাঠ তলিয়ে রয়েছে। ফলে শিক্ষার্থীসহ দুর্ভোগে পরেছে স্থানীয়রা। কলাপাড়া আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, ঘূর্নিঝড় টিটলি আস্তে আস্তে দূর্বল হয়ে পরছে। তাই চার নম্বর সতর্ক সংকেত নামিয়ে উপকূলীয় এ অঞ্চলকে তিন নম্বর সতর্ক সংকেত দেখানো হয়েছে।