মৃত্যু ফাঁদে পরিনত হয়েছে ঢাকাÑখুলনা মহাসড়ক

ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে দূর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। এ যেনো একটি মৃত্যু ফাঁদ। কোন না কোন দূর্ঘটনায় কেউ না কেউ মারা পড়ছে। আহত হচ্ছে অসংখ্য মানুষ। কোনক্রমেই মহাসড়কটিতে দূর্ঘটনার সংখ্যা কমানো যাচ্ছে না।
বৃহস্পতিবার ভোর রাত সাড়ে তিনটার দিকে একটি মাইক্রোবাস মহাসড়কটির গোপালপুর নামক এলাকায় দাড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের পেছনে সজোরে গিয়ে ধাক্কা খেলে চালক ফরহাদ শেখ (২২) গুরুতর আহত হন। পরে তাকে গোপালগঞ্জ ২৫০ বেড হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তার মৃত্যু হয় চিকিৎসাধীন অবস্থায়।
বুধবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে মহাসড়কের হরিদাশপুর নামক স্থানে ঢাকাগামী টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে সায়েমা আহমেদ নামে জেলা শহরের শেখ হাসিনা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের একজন ছাত্রী গুরুতর আহত হয়। পরে সে গোপালগঞ্জ ২৫০ বেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। বৃহস্পতিবার সকালে তার মৃত্যুর খবর পেয়ে শেখ হাসিনা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের সামনে ছাত্রীরা মানব বন্ধন করেছে দুপুরের দিকে। মানব বন্ধন চলাকালে মুখে কালো কাপড় পেচিয়ে রাখে শিক্ষার্থীরা।
বুধবার দুপুরে ইমাদ পরিবহন নামে যাত্রীবাহি একটি বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে মহাসড়কের পোনা বাসষ্ট্যান্ডের কাছে খাদে পড়ে গেলে কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছে। একই দিন দুপুরে টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের সাথে একটি মালবোঝাই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে।