উচ্চকক্ষে রিপাবলিকান, নিম্নকক্ষে ডেমোক্র্যাটদের জয়

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে ‘হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস’ বা প্রতিনিধি পরিষদের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে ডেমোক্র্যাটরা। আট বছরে প্রথমবারের মতো কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার ফলে ডেমোক্র্যাটরা প্রেসিডেন্টের প্রস্তাবে বাঁধা দেয়ার ক্ষমতা অর্জন করলো। তবে কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে জয় পেয়েছে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের রিপাবলিকান পার্টি। খবর বিবিসির।

যুক্তরাষ্ট্রে বিবিসির সহযোগী নেটওয়ার্ক সিবিএস’এর হিসাব অনুযায়ী, হাউসের নিম্নকক্ষের ৪৩৫টি আসনের সবকটিতেই অনুষ্ঠিত হয়েছে ভোট। ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, ২৩৮টি আসনে জয়লাভ করেছে ডেমোক্র্যাট প্রার্থীরা। সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার জন্য তাদের ২১৮টি আসন দরকার ছিল। এতদিন রিপাবলিকানদের দখলে থাকা ২৩টি আসনের মধ্যে ১৪টি আসনও তাদের দখলে গিয়েছে। রিপাবলিকানরা জয়ী হয়েছে ১৯৭টি আসনে। এখন ডেমোক্র্যাটরা ট্রাম্পের প্রশাসনিক এবং ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে তদন্ত পরিচালনা করতে পারবে।

২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছিল রিপাবলিকানরা। তাই মধ্যবর্তী নির্বাচনের ফলাফল ডেমোক্র্যাটদের কাছে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ছিল। সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার পর এ বার আয়কর রিটার্ন জমাসহ ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগের তদন্ত শুরু করাতে পারে তারা। তদন্তের নির্দেশ দিতে পারে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ নিয়েও। মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল গাঁথার পরিকল্পনাও ভেস্তে যেতে পারে ট্রাম্পের। অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার অপসারণের দাবিও তুলতে পারেন ডেমোক্র্যাটরা।

নিউইয়র্কের ডেমোক্র্যাট আলেক্সান্দ্রিয়া ওকাসিও-কর্তেজ কংগ্রেসে সর্বকনিষ্ঠ নারী হিসেবে যোগদান করে ইতিহাস তৈরি করতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ পর্যন্ত পাওয়া ফলাফলে সিনেটের ৫৪টি আসনে জয় পেয়েছে রিপাবলিকানরা, এর মাধ্যমে তারা উচ্চকক্ষে তাদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রেখেছে। অপরদিকে ডেমোক্র্যাটরা এ পর্যন্ত জয় পেয়েছে ৪৬টি আসনে, এর মধ্যে দুজন আবার স্বতন্ত্র প্রার্থী।

সিনেটে আধিপত্য ধরে রাখার মাধ্যমে রিপাবলিকানরা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বেশ কিছু এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে সফল হবে, যার মধ্যে বিচারক নিয়োগ অন্যতম।

ইন্ডিয়ানা, মিজৌরি ও নর্থ ডাকোটায় রিপাবলিকান প্রতিদ্বন্দ্বীদের কাছে ধরাশায়ী হয়েছেন তিন ডেমোক্রেট সিনেটর। ফ্লোরিডার ডেমোক্রেট সিনেটর বিল নেলসনও পরাজিত হতে যাচ্ছেন বলে গণমাধ্যমের খবর। এতে মধ্যবর্তী নির্বাচনের ফলাফলে সিনেটে ডেমোক্রেটদের আসন আরও কমবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মিনেসাটা এবং মিশিগান রাজ্যের দুই ডেমোক্র্যাট রাজনীতিবিদও হতে যাচ্ছেন ইতিহাসের অংশ। ইলহান ওইমার এবং রাশিদা ত্লাইব মার্কিন কংগ্রেসে প্রথম মুসলিম নারী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

প্রথম স্থানীয় আমেরিকান নারী হিসেবে কংগ্রেসে নির্বাচিত হয়েছেন ক্যানসাস রাজ্যের শারিস ডেভিডস এবং নিউ মেক্সিকো রাজ্যের ডেব্রা হালান্ড। ক্যানসাস থেকে নির্বাচিত হওয়া প্রথম সমকামী কংগ্রেস প্রতিনিধিও ডেভিডস। কংগ্রেসের ঊর্ধ্বতন কক্ষে রিপাবলিকানরা সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখলেও সেখানে তাদের অবস্থান খুব একটা শক্ত নয়।

সিনেটে তাদের আসন ৫১টি আর ডেমোক্র্যাটদের আসন ৪৯টি। যদিও সিনেট নির্বাচনে কিছুটা সুবিধাজনক অবস্থানে ছিল রিপাবলিকানরা। এবারের সিনেট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটদের লড়াই করতে হয়েছে ২৬টি আসনের জন্য। সেখানে রিপাবলিকানরা লড়াই করেছে মাত্র ৯টি আসনে।

বিবিসি’র প্রতিবেদক অ্যান্থনি যুরখারের বিশ্লেষণ অনুযায়ী, সিনেটে রিপাবলিকানদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার নির্বাহী এবং বিচারিক ক্ষমতা ব্যবহারের যথেষ্ট সুযোগ পাবেন। তবে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে ডেমোক্র্যাট সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের আইন প্রণয়ন বিষয়ক যেকোনো প্রস্তাবে বাধা দেয়ার ক্ষমতা থাকবে তাদের হাতে।