অর্থনীতি

আদমজী ইপিজেডে সন্ত্রাসীদের আতঙ্কে বিনিয়োগকারীরা

আদমজী ইপিজেডে ব্যবসা নিয়ন্ত্রণের লক্ষে কয়েক দফা মহড়া শেষে ব্যবসায়ীদের উপর হামলা চালিয়েছে একদল সন্ত্রাসী। এতে ৬ ব্যবসায়ী আহত হয়েছে। শনিবার দুপুর ১টায় সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজী ইপিজেডের পাশে কদমতলী পুল এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ৩ জনকে আটক করেছে। ব্যবসায়ীদের ওপর সন্ত্রাসীদের হামলার ঘটনায় আদমজী ইপিজেডের সাধারণ ঠিকাদার ও ইপিজেডের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মালিকদের (বিনিয়োগকারী) মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) আজিজুল হক জানায়, ব্যবসায়ীদের মারধরের খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ৩ জনকে আটক করেছি। বাকিরা পালিয়ে গেছে। এ ঘটনায় মামলা নেয়া হচ্ছে। বাকি সন্ত্রাসীদের ধরার চেষ্টা করছি।

আদমজী ইপিজেডের ব্যবসায়ী ও পুলিশ সূত্র জানায়, আদমজী ইপিজেডে ঠিকাদারী ব্যবসা নিয়ন্ত্রণের লক্ষে গত কয়েকদিন যাবৎ মহড়া দিয়ে আসছিল সন্ত্রাসীরা। শনিবার সকাল থেকেও সেলিম মজুমদারের নেতৃত্বে স্বপন মন্ডল, শিপন, আপেল, আশিক, রনি, কশাই বাবু, রাসেলসহ ২০ থেকে ২৫ জন সন্ত্রাসী ইপিজেডের কয়েকটি ফ্যক্টরির সামনে মহড়া দেয়। সেলিম মজুমদারকে নাসিকের সাবেক কাউন্সিলর সিরাজ মন্ডল ও নাসিকের বর্তমান কাউন্সিলর আলা হোসেন শেল্টার দিয়ে আসছিল বলে জানায় সাধারণ ব্যবসায়ীরা।

ইপিজেড এলাকায় মহড়া শেষে তারা আদমজী ইপিজেডের অদূরে কদমতলীপুল এলাকায় অবস্থান নেয়। একই সময় ওই এলাকা দিয়ে আদমজী ইপিজেডের ব্যবসায়ী মাসুদুর রহমান, ইফতেখার আলম রাজু, সজীব, সোহাগ, জামাল ও ফয়সাল আদমজী ইপিজেডে যাচ্ছিল। এসময় সন্ত্রাসীরা তাদের গতিরোধ করে তাদের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। ব্যবসায়ীরা তাদের দাবিকৃত অর্থ দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে সন্ত্রাসীরা তাদের ওপর হামলে পড়ে। এ সময় সন্ত্রাসীদের হামলায় ব্যবসায়ীরা মারাত্মক আহত হয়।

খবর পেয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। তবে এসময় পুলিশ শিপন, আপেল ও আশিক নামে ৩ জনকে আটক করতে সক্ষম হয়। পুলিশ আহত ঠিকাদারদের উদ্ধার করে স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, প্রধানমন্ত্রী ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের ছবি বিকৃত করে ফেসবুকে আপলোড করায় ২০১৫ সালের ৩ আগস্ট সেলিম মজুমদারের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা হয়েছিল। তাছাড়া তার বিরুদ্ধে ১০টি মামলা রয়েছে। আদমজী ইপিজেডের ব্যবসা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেয়ার জন্য নাসিকের সাবেক কাউন্সিলর সিরাজ মন্ডল ও নাসিকের বর্তমান কাউন্সিলর আলা হোসেন সেলিম মজুমদারকে শেল্টার দিয়ে আদমজী ইপিজেডে মহড়া দেওয়াচ্ছিল। এতে করে আদমজী ইপিজেডের বিনিয়োগকারীদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী জানায়, বর্তমানে এমনিতেই গার্মেন্ট ব্যবসায়ীরা নানা প্রতিকূলতার সন্মুখীন হচ্ছেন। এরমধ্যে সন্ত্রাসীদের মহড়া ও ঠিকাদারদের ওপর হামলার ঘটনায় গার্মেন্ট ব্যবসায় নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। এ ব্যাপারে তিনি প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button