শিক্ষাঙ্গন

গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ সদস্যদের শপথ পড়ালেন মন্ত্রী

বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন থেকে স্বাধীনতা সংগ্রাম পর্যন্ত বাঙ্গালীর প্রতিটি দাবি আদায়ে আমাদের ছাত্র সমাজ নির্দিধায় জীবন বিসর্জন দিয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন।
বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পিএইচএ অডিটোরিয়ামে গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের তৃতীয় কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি ‍এ কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন- বাংলাদেশে স্বাধীন হলেও মানুষের মৌলিক অধিকার এখনও নিশ্চিত হয়নি। বর্তমানে আমদের রাজনৈতিক মুক্তি মিললেও অর্থনৈতিক মুক্তি আসেনি। তাই বর্তমান ছাত্র সমাজকে মানুষের মৌলিক অধিকার নিশ্চিতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। বর্তমানে ছাত্ররা রাজনীতি করেন সম্পদের মালিক হওয়ার জন্য যা জাতির জন্য অশনি সংকেত। অতীত ছাত্রসমাজের ইতিহাস মনে করে বর্তমান ছাত্র নেতাদের দেশ ও জনগণের সেবাই নিজেদের নিয়োজিত করার আহবান জানান মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী।
জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে সকালে শুরু হয় দিনব্যাপী এ আয়োজন। এরপর প্রধান অতিথি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ সদস্যদের শপথ বাক্য পাঠ করান। গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (চলতি দায়িত্ব) এবং কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. লায়লা পারভীন বানু এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এমপি এবং ঢাকা-২০ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বেনজির আহমেদ।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ভিপি জুয়েল রানা। বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।
বাংলাদেশে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে প্রথম এবং একমাত্র গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে নির্বাচিত ছাত্র সংসদ। এর আগে ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৩ সালে প্রথম কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠিত হয়। দ্বিতীয় কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠিত হয় ৪ এপ্রিল ২০১৬।
গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদাধিকারবলে গণ বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সভাপতি। দু’বছর মেয়াদকালীন কমিটির সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, কোষাধ্যক্ষ, ক্রীড়া সম্পাদক, সাহিত্য সম্পাদক, প্রচার ও সমাজ সেবা সম্পাদক পদ নিয়মিত ছাত্রদের সরাসরি ভোটে নির্বাচিত হন। সহ ক্রীড়া সম্পাদক, সহ সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এবং সহ প্রচার ও সমাজসেবা সম্পাদক পদ অর্থাৎ সকলসহ সম্পাদকগণ বিভাগীয় প্রতিনিধি দ্বারা নির্বাচিত হন।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button