আন্তর্জাতিক

আজ ভয়াবহ নাইন ইলেভেন হামলার ১৮ বছর

যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ারসহ তিন স্থানে সন্ত্রাসী হামলার হামলার ১৮ বছর পুর্ণ হলো আজ। ২০০১ সালের এই দিনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বিমান হামলা চালিয়ে ধ্বংস করে দেয়া হয় টুইন টাওয়ার। সেইসঙ্গে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগনেও হামলা চালানো হয় ।

ছিনতাই করা চারটি যাত্রীবাহী বিমান নিয়ে নিউইয়র্কের ম্যানহাটন এবং ওয়াশিংটন ডিসির তিনটি স্থানে হামলা চালায় আত্মঘাতী হামলা চালায় জঙ্গি সংগঠন আল কায়েদার ১৯ সদস্য। ১৮ মিনিটের ব্যবধানে দুটি বিমান বিধ্বস্ত হয় টুইন টাওয়ারে। হামলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও বেসামরিক নাগরিকসহ মোট ২ হাজার ৭শ ৬৩ জন নিহত হয়।
এ হামলার আগে যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে সতর্ক করা হয়েছিল। তবে সে সতর্কতা আমলে নেননি তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ ও তার নিরাপত্তা উপদেষ্টা কনডোলিজ্জা রাইস । এসব হামলার জন্য আফগানিস্তান ভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়দাকে দায়ী করে আসছে দেশটি।হামলার মূল হোতা হিসেবে ভাবা হয় আল কায়দা নেতা ওসামা বিন লাদেনকে। এই ঘটনায় তিনি সরাসরি নেতৃত্ব দিয়েছেন ও অন্যদের উদ্বুদ্ধ করেছেন।

হামলার পর বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে নামে যুক্তরাষ্ট্র। আফগান তালেবান মিলিশিয়ার সঙ্গে আল কায়দার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। তাই আল কায়দা নির্মূল ও বিন লাদেনকে ধরার জন্য আফগানিস্তানে তালেবান বিরোধী অভিযানে নামে যুক্তরাষ্ট্র। অক্টোবরের ৭ তারিখে আফগানিস্তানে হামলা চালায় মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো সামরিক বাহিনী। কয়েক মাসের মধ্যেই হত্যা করা হয় ও বন্দি করা হয় আল কায়েদার অনেক নেতাকে। তবে ধরা-ছোঁয়ার বাইরেই থেকে যান টুইন টাওয়ার হামলার মূল নায়ক ও আল কায়দা নেতা ওসামা বিন লাদেন।হামলার প্রায় ১০ বছর পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার নির্দেশে ২০১১ সালের ২ মে পাকিস্তানের অ্যাবটাবাদের একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে লাদেনকে হত্যা করে মার্কিন নেভি সিল সদস্যরা।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button