আন্তর্জাতিক

ইন্দোনেশিয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে দাবানলের ধোঁয়া

এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে চলা দাবানলের ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তাসহ কয়েকটি শহর। দূষিত বাতাস ছড়িয়ে পড়েছে প্রতিবেশী দেশ মালয়েশিয়াতেও।

দুর্ঘটনা রোধে বাতিল করা হয়েছে শতাধিক ফ্লাইট। বাধ্য হয়ে বন্ধ রাখতে হচ্ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনতে ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্টকে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার তাগিদ দিয়েছেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী।

রাতের আধার নেমে এসেছে মনে হলেও, দিনের বেলায় এভাবেই হেড লাইট জ্বালিয়ে গাড়ি চালাতে হচ্ছে ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায়।

এক সপ্তাহ ধরে ইন্দোনেশিয়ার বর্নিও ও সুমাত্রা দ্বীপের বনাঞ্চলে অব্যাহত দাবানলে কালো ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়েছে মাইলের পর মাইল। কালিমান্তান প্রদেশের পালাঙ্গাকা রায়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে।

স্থানীয়রা বলছেন, আমি খুবই হতাশ হয়ে পড়ছি। বিমান কখন ছাড়বে সকাল থেকে অপেক্ষা করছি। কিন্তু কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ভালো খবর পাচ্ছি না।

বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ বলছে, পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে দেখা হচ্ছে। দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক হাজার সেনা সদস্যও মোতায়েন করা হয়েছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতর কর্মকর্তা মুহাম্মদ ইউসুফ বলেন, বিমান চলাচলের উপযোগী করে তুলতে আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা চালাচ্ছি। কিন্তু কালো ধোঁয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে। আমাদের কাছে সবার আগে নিরাপত্তা।

বিষাক্ত কালো ধোঁয়া ইন্দোনেশিয়ার পাশের দেশ মালেয়শিয়ায়ও ছড়িয়ে পড়েছে। কুয়ালালামপুরের সুউচ্চ ভবনগুলো ধোঁয়ার চাদরে ঢেকে গেছে। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে বাধ্য হচ্ছে কর্তৃপক্ষ। অনেক জায়গায় শিক্ষার্থীদের মাস্ক পরে ক্লাস করতে হচ্ছে।

আমাদেরকে ক্লাসের ভিতরে থাকতে হচ্ছে। ক্লাসের বাইরে যেতে পারছি না।

কালো ধোঁয়া শিশুদের শ্বাসকষ্ট দেখা দিচ্ছে। এজন্য ক্লাসের বাইরের শিক্ষণীয় বিষয়গুলো বাধ্য হয়ে বাতিল করতে হচ্ছে।

শুকনো মৌসুমে ইন্দোনেশিয়ায় পামসহ বিভিন্ন শস্যের জমিগুলো পরিষ্কার করতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো আগুন লাগিয়ে থাকে। এমন অভিযোগ করে আসছে মালেয়শিয়া সরকার। অভিযোগ অস্বীকার করলেও এরই মধ্যে দাবানলের ঘটনায় ৩০টি প্রতিষ্ঠানকে সিলগালা করেছে জাকার্তা।

দাবানল নিয়ন্ত্রণে না আনা গেলে পরিবেশে বিপর্যয়ের পাশাপাশি বিষাক্ত ধোঁয়া দূর দূরান্তে ছড়িয়ে পড়বে। চিকিৎসকরা বলছেন, এতে শ্বাসকষ্টসহ ফুসফুসের নানা রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button