আন্তর্জাতিক

সুলতান সুলেমানের সেই মসজিদে রাশিয়ার হামলা

ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় বন্দরনগরী মারিউপুলের একটি মসজিদে গোলাবর্ষণ করেছে রাশিয়া। মসজিদটিতে তুরস্কের নাগরিকসহ ৮০ জনের বেশি শিশু ও প্রাপ্তবয়স্ক আশ্রয় নিয়েছিলেন। শনিবার (১২ মার্চ) ইউক্রেনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এমন দাবি করেছে।

কিয়েভ বলছে, লোকজনকে মারিউপুলের বাইরে যাওয়ার সুযোগ দিচ্ছে না রাশিয়া। সেখানে একটি স্থানকে ঘেরাও করে রাখা হয়েছে, যাতে কয়েক হাজার লোক আটকা পড়েছেন।

ইউক্রেনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সুলতান সুলেমানের জাঁকালো মসজিদটিতে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী গোলাবর্ষণ করেছে। সেখানে তুরস্কের নাগরিকসহ শিশু ও বৃদ্ধরা আশ্রয় নিয়েছেন। এখন পর্যন্ত হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

বেসামরিক নাগরিকদের ওপর হামলার কথা অস্বীকার করেছে মস্কো।

এদিকে পর্তুগালের উত্তরাঞ্চলীয় শহর পোর্টোতে স্থানীয় ইহুদি সম্প্রদায়ের এক নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত বছর রুশ ধনকুবের অলিগার্ক রোমান আব্রামোভিচকে নাগরিকত্ব দিতে তিনি নথি ইস্যু করেছিলেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

শুক্রবার (১২ মার্চ) কর্তৃপক্ষের বরাতে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এমন খবর দিয়েছে। ধর্মযাজক ডিনায়েল লিটভাককে গ্রেফতার করেছেন ফৌজদারি তদন্ত সংস্থা পিজের কর্মকর্তারা।

এর আগে স্থানীয় পাবলিকো পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, ফুটবল ক্লাব চেলসি এফসির মালিক রোমান আব্রামোভিচকে নাগরিকত্ব দেওয়া নিয়ে চলমান তদন্তের অংশ হিসেবে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পোর্টোর ইহুদি সম্প্রদায় বলছে, ওই ধর্মযাজক কোনো ভুল করেনি। তাকে নোংরা অপপ্রচারের নিশানা বানানো হয়েছে। যে মানদণ্ডের ওপর ভিত্তি করে পর্তুগিজ জাতীয়তার সনদ দেওয়া বিভাগের দেখভাল করতেন তিনি, দেশটির বিভিন্ন সরকার সেই সব মানদণ্ডের স্বীকৃতি দিয়েছিল।

২০২১ সালের এপ্রিলে আব্রামোভিচকে পর্তুগালের নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছিল। হিসপানিক ইহুদি বংশধরদের মধ্যে যারা কোনো দেশের নাগরিক না, তাদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য প্রণীত আইন অনুসারে তাকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়।

মধ্যযুগীয় বিচারসভায় আইবেরীয় উপদ্বীপ থেকে হিসপানিক ইহুদিদের তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল। রাশিয়ায় হিসপানিক ইহুদিদের ইতিহাস সম্পর্কে তেমন কিছু জানা যায় না। তবুও আশখানজি ইহুদিদের একটি স্বাভাবিক পদবি রয়েছে আব্রামোভিচের।

যারা পর্তুগালের নাগরিকত্ব চেয়ে আবেদন করেন, তাদের বংশপরম্পরা পরীক্ষা করে দেখার দায়িত্ব লিসবন কিংবা পোর্টোর ইহুদি কেন্দ্রের। এ ক্ষেত্রে আর্বামোভিচের নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য ডিনায়েল লিটভাক দায়ী ছিলেন।

জানুয়ারিতে এ ঘটনায় একটি তদন্ত শরু করা হয়েছিল। বৃহস্পতিবার পর্তুগিজ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তদন্ত শেষে কী ফল আসে, তার ওপর নির্ভর করছে আব্রামোভিচের নাগরিকত্ব বাতিল করা হবে কিনা।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button