লিড নিউজ

বসিলায় ‘জঙ্গি আস্তানা’ থেকে আটক ১

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বসিলায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা বাড়ি থেকে একজনকে আটক করা হয়েছে।  তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‍্যাব সদর দফতরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক এএসপি আ ন ম ইমরান খান।

ভোর থেকে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে বসিলায় একটি বাড়ি ঘিরে রাখে র‍্যাব-২। জঙ্গি আস্তানার বিষয়ে র‍্যাবের কাছে গোপন সংবাদ রয়েছে। অভিযানের বিষয়ে বিস্তারিত পরে জানাবে র‌্যাব।

সরেজমিনে দেখা যায়, বসিলা ব্রিজের আগে বাম পাশে একটি গলিতে সাদা রঙের একটি চারতলা ভবন জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রেখেছে র‌্যাব সদস্যরা।  ভবনটির দুই তলা থেকে সকাল সাড়ে সাতটায় একজনকে বের করে নিয়ে আসা হয়।

এদিকে ঘটনাস্থলের আশপাশের এলাকা নিরাপত্তা জোরদার করে র‌্যাব সদস্যরা।  এলাকায় যান চলাচল বন্ধ এবং স্থানীয়দেরও ঘর থেকে বের না হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া যেসব উৎসুক জনতার জঙ্গি আস্তানা দেখতে এসেছেন তাদের ঘটনাস্থল থেকে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

আরও দেখা যায়, র‍্যাবের কমপক্ষে শতাধিক সদস্য ওই ভবনকে ঘিরে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এছাড়া ভবনের আশপাশের এলাকায় কোনো ধরনের অনাকাঙ্খিত ঘটনা যেন না ঘটে সে জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

এ বিষয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত একাধিক র‍্যাবের সদস্যের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ভবনটির ভেতরে এখন র‌্যাবের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, ডগ স্কোয়াড ও ফরেনসিক টিম অভিযান পরিচালনা করছে। তবে ভেতরে এখনো আর কোনো জঙ্গি বা বিস্ফোরক আছে কিনা তা এখনো নিশ্চিত করে কেউ বলতে পারছেন না।

এর আগে শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জঙ্গিদের তৎপরতা ও ব্রহ্মপুত্র নদে একটি নৌকায় জঙ্গিদের অবস্থানের কথা জানতে পেরে র‍্যাব-১৪’র একটি দল ময়মনসিংহের খাগডহর এলাকায় অভিযান চালায়।  এ সময় র‍্যাবের সঙ্গে গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটে।

পরে ঘটনাস্থল থেকে কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগজিন, তিন রাউন্ড গুলি, আটটি বোমা সদৃশ্য বস্তু, চারটি ব্যাগ, দরজা ও লক ব্রেকিং সরঞ্জামাদি, একটি মাটির চুলা এবং একটি ইঞ্জিনচালিত নৌকা জব্দ করা হয়।  একইসঙ্গে চার জনকে আটক করে র‍্যাব।

পরে ওইদিন দুপুরে র‍্যাব-১৪’র প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন করেন র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক খন্দকার আল মঈন।

তিনি জানান, জামালপুরের একটি গোপন আস্তানায় বিশেষ প্রশিক্ষণ করে জঙ্গিরা ময়মনসিংহে ব্যাংকসহ কয়েকটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান, এনজিও, স্বর্ণের দোকান টার্গেট করে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button