খুলনা বিভাগসারাদেশ

খুলনার ৪ হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ জনের মৃত্যু

খুলনার চারটি হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ১০ জন, খুলনা জেনারেল হাসপাতালে চার জন, শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে একজন ও গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চার জনের মৃত্যু হয়েছে।

খুমেক হাসপাতালের আওতাভুক্ত করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ফোকাল পারসন ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার বলেন, “মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে পাঁচ জন করোনায় আক্রান্ত ছিলেন, বাকিরা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত হাসপাতালে ১৯৫ জন রোগী ভর্তি ছিলেন। এদের মধ্যে রেড জোনে ১৩০ জন, ইয়ালো জোনে ২৫ জন, এইচডিইউতে ২০ জন ও আইসিইউতে ২০ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ভর্তি হয়েছেন ৪৩ জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪২ জন।”

খুলনা জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. কাজী আবু রাশেদ জানান, ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় চার জনের মৃত্যু হয়েছে। ৮০ শয্যার হাসপাতালে বর্তমানে ভর্তি রয়েছেন ৭৬ জন। এ ছাড়া, ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে নতুন করে ১২ জন ভর্তি হয়েছেন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন আট জন।

খুলনার শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. প্রকাশ চন্দ্র দেবনাথ বলেন, “২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। ৪৫ শয্যার করোনা ইউনিটে ৪৪ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে আইসিইউতে রয়েছেন ১০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ছয় জন ভর্তি হয়েছেন এবং ছয় জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।”

গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের স্বত্বাধিকারী গাজী মিজানুর রহমান জানান, ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় চার জনের মৃত্যু হয়েছে।

খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় খুমেকের পিসিআর ল্যাবে ৩৭৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২০৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে খুলনার ৩৪৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ১৪৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। এ ছাড়া, বাগেরহাটের সাত জন, যশোরের চার জন, সাতক্ষীরার দুই জন, নড়াইলের একজন ও গোপালগঞ্জের একজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button