বরিশাল বিভাগসারাদেশ

ঘূর্নিঝড় অশনি’র প্রভাবে উপকূলে ভারী বর্ষন

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি: পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিনপূর্ব বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত ঘূর্নিঝড় অশনি উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এর প্রভাবে পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর বেশ উত্তাল রয়েছে এবং সোবাবার ভোররাত থেকেই টানা বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। সকাল নয়টায় জেলায় ৪.৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অফিস। একই সাথে বাতাসের চাপও কিছুটা বেড়েছে।
ঘূর্নিঝড় অশনি দুপুর ১২টা পর্যন্ত পায়ারা সমুদ্র বন্দর থেকে ৯৩৫ কিলোমিটার দক্ষিন-দক্ষিনপশ্চিমে, চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর থেকে ১০৮৫ কিলোমিটার দক্ষিন-দক্ষিনপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্র বন্দর থেকে ১০২০ কিলোমিটার দক্ষিন-দক্ষিনপশ্চিমে এবং মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ১০২০ কিলোমিটার দক্ষিন-দক্ষিনপশ্চিমে অবস্থান করছিলো। এটি আরো উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। ঘূর্নিঝড় কেন্দ্রের ৬৪ কিলোমিাটার এর মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৮৯ কিলোমিটার যা দমকা বা ঝরো হাওয়া আকারে ১১৭ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই পায়রা সমুদ্র বন্দরসহ সব বন্দর সমূহকে দুই নম্বর দূরবর্তী হুশিয়ারী সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অফিস। সকল মাছধরা ট্রলার সমূহকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। ইতিমধ্যে অধিকাংশ মাছ ধরা ট্রলার মহিপুর ও আলীপুর মৎস্য বন্দরের পোতাশ্রয়ে আশ্রয় নিলেও কিছু সংখ্যক ট্রলার এখনও গভীর সাগরে অবস্থান করছে বলে জানা গেছে। তবে আজ সন্ধ্যার মধ্যে সকল মাছধরা ট্রলার নিরাপদ আশ্রয়ে ফিরবে বলে জানিয়েছে মৎস্য আড়ৎদার মালিক সমিতি।
এদিকে বৃষ্টির এই ধারা অব্যাহত থাকলে এবং ঘূর্নিঝড় অশনি উপকূলীয় এ অঞ্চলে আঘাত হানলে মুগডাল ও বোরো ধান চাষীরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হবে বলে জানিয়েছে কৃষি বিভাগ।
কলাপাড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এ আর এম সাইফুল্লাহ জানান, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্নিঝড় অশনি’র কারনে বোরো চাষীদের ধান কাটার নির্দেশনা দিয়ে এলাকায় এলাকায় মাইকিং করা হচ্ছে। যাতে তাদের ফসল ঘরে তুলতে কোন সমস্যা না হয়।
কলাপাড়া উপজেলা ঘূর্নিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি পরিচালক মোঃ আসাদুজ্জামান জানান, ঘূর্নিঝড় অশনি বর্তমানে উত্তর পশ্চিম দিকে অগ্রসর হচ্ছে। পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে এখন ৯৩৫ কিঃ মিঃ দূরে রয়েছে। এটি ভারত উপকূল অতিক্রম করার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এখনো নিশ্চিত কিছু বলা যাচ্ছেনা।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button