সারাদেশ

বগুড়ায় কাউন্সিলরের পিটুনির দুদিন পর যুবকের মৃত্যু

প্রতিনিধিঃ  বগুড়ায় সালিশে পৌর কাউন্সিলের মারধরে আব্দুল মমিন (২৫) নামের এক যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। রোববার (২২ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে বগুড়া শহরের ফুলবাড়ি মধ্যপাড়া থেকে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে। নিহত মমিন ফুলবাড়ি মধ্যপাড়ার রেজাউলের ছেলে। তিনি পেশায় হোটেল শ্রমিক ছিলেন। এ ঘটনায় অভিযুক্ত বগুড়া পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলাম বিটুকে পুলিশ আটক করেছে। নিহতের স্ত্রী বর্ষা বলেন, শুক্রবার স্থানীয় এক রিকশাচালকের শিশুকন্যাকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তুলে পৌর কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলাম বিটু মমিনকে ফুলবাড়ি ফাউন্ডেশন নামের একটি ক্লাবে ডেকে নেন। সেখানে শালিস বৈঠকের নামে কাঠ দিয়ে বেধড়ক পিটানো হয় মমিনকে। পরে মমিনের বাবার জিম্মায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। তিনি আরও বলেন, রিকশাচালক জুয়েলের শিশুকন্যাকে সিগারেট আনতে দেওয়ার ঘটনা নিয়ে পৌর কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলাম বিটু তাকে মারধর করেন। অভিযোগ শুনে তাকে গালমন্দ করি। শনিবার রাতেই মমিন ফুলবাড়ির নিজের বাড়িতে চলে যান। মমিনের ভগ্নীপতি জাহিদ বলেন, রোববার সকালে শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিলে মমিনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। পরে পৌর কাউন্সিলর বিষয়টি জানতে পেরে মরদেহ নিজে মমিনের বাড়িতে নিয়ে আসেন এবং তার খরচে দাফনের প্রস্তুতি নেন। বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত মৃত্যুর সঠিক কারণ নিশ্চিত করে বলা যাবে না। কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। এ কারণে তাকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button