বরিশাল বিভাগ

উপকূলে টানা বৃষ্টির সাথে হিমেল হাওয়ায় বিপর্যস্ত জনজীবন

কলাপাড়া(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: নি¤œচাপের প্রভাবে গত তিন দিন ধরে থেমে থেমে হালকা গুড়ি গুড়ি বৃস্টি হলেও রবিবার সকাল থেকে উপকূলীয় অঞ্চল পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় একটানা হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত অব্যহত রয়েছে। বাতাসের চাপ বাড়ায় বঙ্গোপসাগর কিছুটা উত্তাল হয়ে রয়েছে। গত তিন দিন ধরে সূর্যের মুখ দেখেনি এ জনপদের মানুষ। বয়ে চলা হিমেল হাওয়ায় বেড়েছে শীতের তীব্রতা। এদিকে রবিবার সকাল নয়টা থেকে সোমবার সকাল নয়টা পর্যন্ত ২৪ ঘন্টায় ৩২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অফিস।
রবিবার সন্ধ্যা ছয়টায় নি¤œচাপটি পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ৫০৫ কিলোমিটার দক্ষিন পশ্চিমে অবস্থান করছিলো। এর প্রভাবে উপকূলীয় এলাকায় ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার শংকা করছে আবহাওয়া অফিস। তাই পায়রা সমুদ্র বন্দরকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। সকল মাছ ধরা ট্রলার সমূহকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।
এদিকে নি¤œচাপের প্রভাবে হঠাৎ করেই শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছে নি¤œ আয়ের শ্রমজীবিসহ কর্মজীবি মানুষ। স্বাভাবিক কর্মে স্থবিরতা বিরাজ করছে শহর থেকে গ্রামীন জনপদে। বৈরী এ আবহাওয়ার কারনে সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটায় ঘুরতে আসা পর্যটকরা হোটেল বন্দি হয়ে পড়েছেন । দর্শনীয় স্থান ভ্রমন না করেই অনেক পর্যটক বাড়ী ফিরছেন। হোটেল ব্যবসায়ীরা জানান, বিরূপ আবহাওয়ার কারনে অনেক পর্যটক তাদের আগাম বুকিং বাতিল করেছে।
অপরদিকে নি¤œচাপের প্রভাবে টানা বৃস্টির ফলে প্রভাব পড়েছে কৃষিতে। অনেক কৃষকের পাকা আমন ধান ক্ষেতেই নস্ট হওয়ার শংকা দেখা দিয়েছে। চাষকৃত রবিশষ্য এবং মৌসুমী সবজি ক্ষতির মুখে পড়ার শংকা দেখা দিয়েছে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়েছে আগাম তরমুজ চাষীরা। ধূলাসার ইউনিয়নের গঙ্গামতি এলাকার তরমুজ চাষী আফেজ উদ্দিন জানান, টানা বৃস্টির ফলে আগাম চাষকৃত তরমুজ ক্ষেতে বপনকৃত বীজ নস্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা শতভাগ। এছাড়া এই আবহাওয়ার কারনে ক্ষেতে পোঁকার আক্রমন বেড়ে যাওয়ার শংকা করছে কৃষি বিভাগ। তাই আবহাওয়া পরবর্তী সময়ে ফসলী ক্ষেতে পোঁকার আক্রমনে ব্যাপক ক্ষতি হতে পারে বলে মনে করছেন তারা।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button