রংপুর বিভাগ

কুড়িগ্রামের কচাকাটায় একরাতে আট বাড়িতে সিঁদেল চুরি

কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার কচাকাটা থানাী কেদার ইউনিয়নের বাহের কেদার গ্রামের কবিরাজপাড়া এবং প্রধাণীপাড়ায় এক রাতে আটটি বাড়িতে সিঁদেল চুরির ঘটনা ঘটেছে। এসময় নগদ টাকা, অলংকার, মোবাইল ফোন, জামাকাপড় চুরি যায়।
ভুক্তভোগীরা জানান, বুধবার গভীর রাতে সিঁদ কেটে একে একে  গ্রামের আটটি বাড়ির নয়টি ঘরে ঢুকে নগদ টাকাসহ লক্ষাধিক টাকার জিনিসপত্র চুরি করে নিয়ে যায় সিঁদেল চোর। হঠাৎ এমন চুরির ঘটনায় হতভম্ব গ্রামটির মানুষ। এ বিষয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছে কচাকাটা থানা পুলিশ।
চুরি যাওয়া বাড়িগুলোর মালিক কবিরাজপাড়ার মৃত বকিয়ত উল্ল্যার ছেলে নূরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, আমজাদ হোসেন, মৃত দুরবকস কবিরাজের ছেলে কোরবান আলী। প্রধানীপাড়ার মৃত ধোন্দা ইসলামের  ছেলে মফিজুল ইসলাম, মোশাদুল ইসলাম, মৃত কাশেম প্রধানীর ছেলে মিজানুর রহমান মিন্টু  এবং ব্যবসায়ী  মকবুল হোসেন।
নুরুল ইসলাম জানান, তার থাকার ঘরে সিঁদ কেটে চোর ঢুকে নগত ৩৭হাজার টাকা, স্বর্ণালংকারসহ ৬০ হাজার টাকার জিনিসপত্র চুরি করে নিয়ে যায়। আমজাদ হোসেনের স্ত্রী রেজিয়া পারভীন জানান, তার ঘর থেকে একটি মোবাইল,একটি টর্চলাইট এবং নগদ সাড়ে ৭ হাজার টাকা চুরি হয়েছে। কোরবান আলীর স্ত্রী আমেনা বেগম জানান, তার সাড়ে ৫হাজার টাকা চুরি হয়েছে। এছাড়া মফিজুল ইসলামের একটি মোবাইল, কাপড়চোপর, মিজানুর রহমান মিন্টুর দুটি মোবাইল ফোন, নগদ ১২শ টাকা চুরি যায়। অন্যান্যদেরও নগদ টাকা এবং মোবইল ফোন চুরি হয়েছে বলে জানা যায়।
কেদার ইউনিয়নের নবনির্বাচিত ১নং ওয়ার্ড সদস্য শফিকুল ইসলাম জানান, একরাতে একসাথে এতগুলো বাড়ি চুরি যাওয়ার ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।
কচাকাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতার্ জাহেদুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছে পুলিশ। তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button