অর্থনীতিজাতীয়

দুর্নীতি না থাকলে প্রবৃদ্ধি আরো বাড়ত: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

কোভিড পরিস্থিতির মধ্যে দেশে দারিদ্র্যের হার ৪২ শতাংশ হয়েছে বলে কয়েকটি গবেষণা সংস্থা যে দাবি করেছে, তার সঙ্গেও তিনি দ্বিমত পোষণ করছেন।

শনিবার এফডিসিতে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির আয়োজনে ‘এলডিসির চ্যালেঞ্জ উত্তরণে সরকারের প্রস্তুতি’ নিয়ে ছায়া সংসদে প্রধান অতিথি হয়ে এ বিষয়ে কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী, যিনি গতমাসেই দায়িত্ব নিয়েছেন।

ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “অনুষ্ঠানে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতি একটি বড় সামাজিক সমস্যা। দুর্নীতি না থাকলে জিডিপি প্রবৃদ্ধি আরো বাড়ত। সরকার দুর্নীতিকে উন্নয়নের অন্তরায় হিসেবে বিবেচনা করে। এলডিসি উত্তরণের পথেও দুর্নীতি একটি বড় চ্যালেঞ্জ।”

স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) তালিকা থেকে বের হতে যেসব চ্যালেঞ্জ রয়েছে তা মোকাবেলায় সরকার দীর্ঘমেয়াদী কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বলে জানান পরিকল্পনা কমিশনের সাবেক সদস্য শামসুল আলম।

তিনি বলেন, ২০২৬ সালে বাংলাদেশের উত্তরণ সম্পূর্ণ হওয়ার পরও যাতে শুল্কমুক্ত রপ্তানি অব্যাহত রাখা যায়, সেজন্য সরকার সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।

আটটি দেশের সাথে অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য চুক্তির উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, গত ২০১৯-২০ অর্থবছরের তুলনায় ২০২০- ২১ অর্থবছরে ১৯ শতাংশ রপ্তানি আয় বেড়েছে। পদ্মা সেতু চালু হলে জিডিপি ৩ শতাংশ বাড়বে।

শামসুল আলমকে উদ্ধৃত করে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “কোভিড পরিস্থিতির কারণে দেশে দরিদ্র লোকের সংখ্যা ৪২ শতাংশ হয়েছে মর্মে কয়েকটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান যে তথ্য দিয়েছে, তা সঠিক নয়। তাদের সমীক্ষা পদ্ধতি গ্রহণযোগ্য নয়। এমনকি বাংলাদেশের অর্থনীতি নিয়ে তাদের অনেক প্রক্ষেপণও বাস্তবসম্মত নয়।

“গবেষণা প্রতিষ্ঠান সানেম কর্তৃক অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা না করে শুধু কোভিড রেসপন্স প্ল্যান করার যে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল তা সংবিধান বিরোধী।”

ড. আলম বলেন, কোভিডের কারণে অর্থনীতিতে আঘাত এসেছে এবং তা উত্তরণে সরকার ‘যথাযথ কর্মসূচি’ গ্রহণ করেছে।

“তবে এটি সত্য যে আর্থসামাজিক পরিস্থিতি বিবেচনায় এখানে দীর্ঘমেয়াদি লকডাউন বাস্তবায়ন সম্ভব নয়।”

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, এলডিসি থেকে উত্তরণে নতুন এক বাস্তবতার মুখোমুখি হতে হবে বাংলাদেশকে। মুখোমুখি হতে হবে নানা চ্যালেঞ্জের। আসবে অনেক সম্ভাবনা। তবে এলডিসি থেকে উত্তরণ আমাদের জন্য গলার কাটা না হয়ে দাঁড়ায় সেদিকে গুরুত্ব দিতে হবে। তাই প্রাতিষ্ঠানিক সংস্কারে মনোযোগি হয়ে দুর্নীতি হ্রাস ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার দিকে নজর দেয়া জরুরি।

এলডিসির চ্যালেঞ্জ উত্তরণে কিরণ ১০ দফা সুপারিশ তুলে ধরেন ছায়া সংসদ অনুষ্ঠানে।

এলডিসি গ্র্যাজুয়েশনের কারণে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য আন্তর্জাতিক সংস্থার বৃত্তি যাতে বন্ধ না হয়, সেদিকে নজর দেওয়ার পাশাপাশি বিকল্প বৃত্তির ব্যবস্থা করার কথাও তিনি বলেন।

এ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশকে পরাজিত করে ইউনিভার্সিটি অব সাউথ এশিয়া চ্যাম্পিয়ান হয়েছে বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button