জাতীয়

৭ দিন বাড়তে পারে বিধিনিষেধ

করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে চলমান বিধিনিষেধ আরও এক সপ্তাহ বাড়তে পারে। তবে কিছু ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ শিথিল করা হবে। আজ মঙ্গলবার আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে বলে জানিয়েছে সরকারি সূত্র। কোভিড-১৯ পরিস্থিতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা আজ বেলা ১১টায় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হবে। এতে ১২ জন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী, ১৬ জন সচিব, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার, পুলিশ মহাপরিদর্শক, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার শীর্ষ কর্মকর্তা, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক, আইইডিসিআরের পরিচালকসহ সংশ্লিষ্টরা অংশ নেবেন। গতকাল সোমবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ বিষয়ক চিঠি সবার কাছে পাঠানো হয়।
ঈদ উপলক্ষে আট দিন বিরতি দিয়ে গত ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। তা শেষ হবে ৫ আগস্ট মধ্যরাতে। এরই মধ্যে গত ১ আগস্ট থেকে রফতানিমুখী শিল্পকারখানা খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় কঠোর বিধিনিষেধ আরও ১০ দিন বাড়ানোর সুপারিশ করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চলমান বিধিনিষেধ শেষে নতুন করে যে বিধিনিষেধ দেওয়া হবে তাতে সরকারি-বেসরকারি অফিস সীমিত পরিসরে খুলবে। আর গণপরিবহন সীমিত পরিসরে চালু করা হতে পারে। রফতানিমুখী শিল্প-কলকারখানা চালু থাকবে। গত ৩০ জুলাই স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম বলেন, আমরা আরও ১০ দিন বিধিনিষেধ বাড়ানোর সুপারিশ করেছি। তিনি জানান, সংক্রমণ যদি এভাবে বাড়তে থাকে তা হলে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া সম্ভব হবে না।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button