জাতীয়

বেড়েছে চালের দাম, সবজির দামও চড়া

গত সপ্তাহের তুলনায় সরু চাল (নাজির/মিনিকেট) ৫৮ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ৬৮ টাকা। মাঝারি মানের চাল (পাইজাম/লতা) ৫০ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ৫৬ টাকা। এছাড়া স্বর্ণা ও চায়না ইরি জাতের মোটা চলের দাম ৪৫ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ৪৮ টাকা। সরকারি সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অফ বাংলাদেশের (টিসিবি) হিসাবে এই দাম জানা গেছে।

এদিকে, চালের দাম বাড়লেও গত সপ্তাহের তুলনায় কমেছে পেঁয়াজ ও মুরগির দাম। অপরিবর্তিত রয়েছে খোলা আটার দাম। তবে প্যাকেটজাত আটার দাম কমেছে। অন্যদিকে, খোলা ময়দার দাম বাড়লেও অপরিবর্তিত হয়েছে প্যাকেটজাত ময়দার দাম। তবে শীতের মৌসুমী সবজি সব উঠে গেলেও সবজির বাজার রয়েছে এখনো চড়া।

রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে এ তথ্য জানা গেছে।

এ সপ্তাহে প্যাকেট আটার দাম ৪০ টাকা থেকে ৪৫ টাকা হয়েছে। খোলা ময়দার দাম ৪৫ টাকা থেকে ৫০ টাকা হয়েছে। প্যাকেট ময়দার দাম আগের সপ্তাহের মতো ৫০ টাকাই আছে।

তবে পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমেছে। দেশি পেঁয়াজের দাম আগের সপ্তাহের ৫৫ টাকা থেকে ৫০ টাকায় নেমেছে। আমদানি করা পেঁয়াজের দাম ৪৫ টাকা থেকে ৪০ টাকা হয়েছে।

দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়, আমদানি করা রসুন ১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। শুকনা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা কেজিতে।

ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৮০ থেকে ১৮৫ টাকা কেজিতে। গত সপ্তাহেই মুরগির দাম ছিল ২০০ টাকা। আর সোনালি মুরগি ৩৫০ টাকা কেজি থেকে কমে এখন বিক্রি হচ্ছে ২৮০ টাকা কেজি।

এদিকে শীতে সবজির জোগান বাড়লেও সেই তুলনায় দাম কমেনি। বাজারে এখনও প্রতিটি লাউ বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকায়। ফুলকপি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, বাঁধাকপি ৩৫-৪০ টাকা, মুলা ৪০ টাকা কেজি, শিম ৫০ টাকা এবং নরসিংদীর শিম বিক্রি হচ্ছে ৬৫-৭০ টাকা কেজিতে।

এছাড়া ভরা মৌসুমেও শালগম ও ব্রকলি দাম আকাশ ছোঁয়া। শালগম বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা, আর ব্রকলি এক পিস বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button