রাজশাহী বিভাগসারাদেশ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে লকডাউনের প্রথমদিনে নেয় কোন প্রভাব

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি
সারাদেশের ন্যায় চাঁপাইনবাবগঞ্জে ও লক-ডাউন শুরু হয়েছে। ৫ এপ্রিল সোমবার সকালে বিশ্বরোডে দেখা যায়; গণপরিবহন চলাচল না থাকলেও সিএনজি,রিক্সা,ইজিবাইকসহ বেশ কয়েকটি পরিবহন চালু রয়েছে। এদিকে বিশ্বরোডসহ শহরের প্রায়ই সব দোকানপাট খুলেছে। কিন্তু বাইরে মানুষের ভীড় সকালে কমে থাকলেও বেলা গড়ার সাথে সাথে মানুষ সহ দূরপাল্লার বাস ও ট্রাক চলতে দেখা যায়। এদিকে করোনা সচেতনতাই মাঠে কাজ করছে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটেসহ জেলা পুলিশ। জরুরী দ্রবাদী পণ্যের দোকান ছাড়াও সকল ধরনের দোকান গুলো খোলা চোখে পরার মতো। তবে শহরের বিশ্বরোড, শান্তিমোড়,নিউমার্কেট, পুরাতন বাজার,বারোঘরিয়া বাজারসহ গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট গুলোতে জেলা পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেটের টহল দেখা যায়।প্রশাসনের লোক দেখলে মাক্স ব্যবহার করা ও জনসমাগম ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে জনসাধারন।তবে পুলিশ যাবার পরে আবার আগের মতো।
বিশ্বরোড দিয়ে এক পথচারী সেফাউর তিনি জানান; নিজের সুরক্ষা নিজের কাছে। আমি কারণ ছাড়া বাড়ি থেকে বের হতে রাজি নয়, আমার ছোট বাচ্চাটা হাসপাতালে ভর্তি তাই হাসপাতালে যাবো। আরেক পথচারী আসমাউল তিনি জানান; লক-ডাউন শুরু হয়েছে, কিন্তু পেটের ক্ষুধাতো আর বন্ধ থাকবেনা।
এক ইলেকট্রনিক মিস্তির বলে,আমারা দিন মজুরী ব্যাক্তি কাজ করলে খেতে পাবো না করলে খাবো কি?সরকারকে বলবেন যেন আমাদের বাসায় বাসায় গিয়ে বস্তার বস্তা খাবার দিয়ে আসে,তারপর যতদিন ইচ্ছা লকডাউন দিক বাসা থেকে বের হবো না।
দুজন রিস্কাচালকের সাথে কথা হয়, তারা জানান; পেটের দায়ে বের হয়েছি স্যার। বাড়িতে বসে থাকলে কে খাওয়ার দিবে। আমি নিজেই আস্তে আস্তে অক্ষম হয়ে পড়ছি। বাড়িতে দুবেলার খাবার জন্য;চাল নেই। বসে থাকলেতো কেউ দিবেনা খাওয়ার।
জেলা সিভিল সার্জন জানান; জেলায় মোট করোনায় আক্রান্ত ৮৫৩জন। মৃত্যু হয়েছে ১৪ জনের। গতকাল রোবার রাতে ১০জনের করোনা সনাক্ত হয়েছে।
অন্যদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সহ শিবগঞ্জ, নাচোল,ভোলাহাট, গোমস্তাপুরে হাটও বসেছে। ক্রেতারা ভীড়ও করছে। পুলিশ দেখলে পালিয়ে যাচ্ছে; যখন পুলিশ থাকছেনা তখন সবাই আগের মতো।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button