সারাদেশ

চুয়াডাঙ্গায় চালক নিহতের গুজবে গাড়ি ভাঙচুর-অবরোধ

চুয়াডাঙ্গায় বাসের ধাক্কায় এক মোটরসাইকেলচালক নিহতের গুজবে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়ে গাড়িতে আগুন দিয়েছে বিক্ষুব্ধ জনতা। তারা সড়ক ব্যারিকেড দিয়ে বন্ধ করে দেয়। এ সময় চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ সড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ থাকে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে শহরের ঝিনাইদহ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহত ওই চালকের নাম আশরাফুল ইসলাম পলাশ (৩৪)। তিনি চুয়াডাঙ্গা শহরের সাতগাড়ি এলাকার মুকুল মণ্ডলের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার সকালে বাড়ি থেকে মোটরসাইকেলে কর্মস্থলের উদ্দেশ্যে বের হয় আশরাফুল।

সকাল সাড়ে ৭টার দিকে শহরের ঝিনাইদহ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পৌঁছালে সড়কের উল্টো দিক দিয়ে আসা দ্রুতগামী একটি যাত্রীবাহী বাস তাকে চাপা দেয়। এতে গুরুতর আহত হন পলাশ।

স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা তাকে রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

এদিকে দুর্ঘটনার পর পরই আহত পলাশের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুব্ধ জনতা দুর্ঘটনাকবলিত বাসটি আটক করে ব্যাপক ভাঙচুর চালান। এ সময় আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয় বাসটি। সড়কে ব্যারিকেড দিয়ে চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ সড়কের সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছলে অবরোধ তুলে নেন বিক্ষুব্ধরা।

স্থানীয় বাসিন্দা খালিদ মণ্ডল জানান, মেহেরপুর থেকে বরিশালগামী আলসানী পরিবহন নামে যাত্রীবাহী ওই বাসটির গতি ছিল বেপরোয়া। তা ছাড়া বাসটি সড়কের লেন পরিবর্তন করে উল্টোপথে যাওয়ার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান বলেন, বাসটির বেপরোয়া গতি ও উল্টোপথে চালানোর কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। আমরা বাসটির চালক ও হেলপারকে আটকের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button