রংপুর বিভাগ

সৈয়দপুরে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ

নীলফামার জেলা প্রতিনিধি: নীলফামারীর সৈয়দপুরে যৌতুকের দাবিতে এক তরুনী গৃহবধূকে অমানবিক ভাবে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে স্বামী আফতাবুজ্জামানের (৩০) বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাত ৯ টার দিকে সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা গুরুতর অবস্থায় ওই নারী ও তাঁর  সাত মাস বয়সী কন্যা সন্তানকে  উদ্ধার করে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূর  বাড়ি কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের হাজারিহাট খানপাড়ায়।
গৃহবধূর পরিবার সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় এক ইনস্টিটিউটে নার্সিং পড়াকালীন ওই তরুনীর  সাথে একই এলাকার আহাদ খানের ছেলে আফতাবুজ্জামানের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দীর্ঘদিন মন নেওয়া দেওয়ার পর ২০১৮ সালে তাঁরা দুজনে বিয়ে করেন। মেয়ের পরিবার বিয়ে মেনে নিলেও আফতাবুজ্জামানের পরিবার  বিয়ে মেনে না নেওয়ায় তিনি বউ নিয়ে শ্বশুর বাড়িতেই থাকেন। এর মধ্যে তিনি স্ত্রীর কাছে একটি মটরসাইকেল ও ১০ লাখ টাকা দাবি করেন। তিনি তাঁর স্ত্রীকে বলেন ওই টাকা দিলে তাঁর পরিবার তাঁদেরকে মেনে নিবেন। তা নাহলে তাঁকে আরেকটি বিয়ে করতে হবে।  টাকা দিতে না পারায় আফতাবুজ্জামান গত ৮ নভেম্বর শ্বশুরবাড়িতে চলে যান। ঘটনার দিন মুঠোফোনে  আলোচনার কথা বলে  উল্লেখিত এলাকায় তাঁকে  ডেকে নেন। গৃহবধূ সেখানে উপস্থিত হয়ে দেখেন তার স্বামীর সাথে অপরিচিত আরও কয়েকজন লোক আছেন। স্বামীসহ তাঁরা  আড়ালে নিয়ে গিয়ে কোল থেকে  সন্তানকে কেঁড়ে নিয়ে তাঁকে মারপিট করেন।  ওই পথ দিয়ে লোকজন আসায়   তাঁকে ফেলে রেখে তাঁরা  সেখান থেকে  চলে যান।  পরে স্থানীরা তাঁকে ও তার সন্তানকে উদ্ধার করে হাসপাতালটিতে ভর্তি করান।
ওই গৃহবধূ জানিয়েছেন, যৌতুকের দাবিতে আফতাবুজ্জামান তাঁকে হত্যার উদ্দেশ্যে গলা টিপে ধরেন, পেটে লাথি মারেন। তার পুরো শরীরজুড়ে ক্ষতচিহ্ন ও মারধরের আঘাত রয়েছে। তিনি বলেন, এ ঘটনায়  মামলার প্রস্তুতি চলছে।
সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান জানান, এ ব্যাপারে কেউ কোনো অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button