জাতীয়

বঙ্গবন্ধু সেতুর টোল প্লাজা বন্ধ, দীর্ঘ যানজট

পবিত্র ঈদুল আজহা সামনে রেখে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে অতিরিক্ত যানবাহনের চাপ সৃষ্টি হয়েছে। বঙ্গবন্ধু সেতুর দু’পারেই গত তিন থেকে যানবাহনের চাপ বেড়েছে। সেতুর পূর্বপাড়ে টাঙ্গাইল এবং পশ্চিম পাড়ে সিরাজগঞ্জ প্রান্তে দীর্ঘ ৩৫ কি.মি যানজটের প্রভাবে সেতুর উভয় টোল প্লাজার কার্যক্রম প্রায়ই হঠাৎ হঠাৎ স্থবির হয়ে পড়ছে।

যানবাহনের চাপ কমাতে দিনেরাতে দফায় দফায় টোল প্লাজার কার্যক্রম বন্ধ থাকায় দীর্ঘ যানজটে নাকাল হয়ে পড়ছেন উত্তরের ঘরমুখো মানুষ। সেতুর পূর্বপাড়ের যানবাহনের চাপের প্রভাব পশ্চিম পাড়েও।

বিড়ম্বনায় পড়া যাত্রীদের অনেকেই মন্তব্য করছেন ‘দিনেরাতে কয়েক দফায় বঙ্গবন্ধু সেতুর উভয় টোল প্লাজার কার্যক্রম বন্ধ রাখার বিষয়টি কর্তৃপক্ষের চাপ প্রশমনের কৌশল, না-কি যানবাহনের পারাপারে বাস্তবিক ধীরগতির প্রভাব।’

সেতু কর্তপক্ষের মাধ্যমে জানা যায়, শনিবার সন্ধ্যার পর থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত দু’দফা উভয় টোল প্লাজার কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়। সকালের দিকে মহাসড়কটির ঢাকা-উত্তরবঙ্গগামী লেনে যানবাহনের চাপ বেশি থাকায় বিকেলেও পশ্চিম টোল প্লাজার কার্যক্রম সাময়িক বন্ধ রাখা হয়।

বঙ্গবন্ধু পশ্চিম থানার ওসি মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, অতিরিক্ত যানবাহনের চাপের কারণে বিকেল থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম টোল প্লাজার কার্যক্রম বন্ধ রাখার কারণে উত্তরবঙ্গ থেকে ঢাকাগামী লেনে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ওসি মো. শাহজাহান আলী বলেন, ঈদে মানুষজনের পাশাপাশি কোরবানীর পশুর ট্রাক সিরাজগঞ্জের তিনটি মহাসড়ক দিয়ে চলাচল করছে। ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে ফুলজোড় নদীর ওপর ক্ষতিগ্রস্ত সওজের সরু নলকা সেতুর কারণে যান চলাচল বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। যে কারণে গত তিন দিন থেকে এ সমস্য ধীরে ধীরে প্রকট হচ্ছে।

এ দিকে বঙ্গবন্ধু সেতু রক্ষণাবেক্ষণ প্রতিষ্ঠান বিবিএ’র নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন পাভেল শনিবার রাত ১০টায় সমকালকে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু সেতুর টোলপ্লাজার কার্যক্রম আমাদের পক্ষ্য থেকে এক মিনিটের জন্যও বন্ধ করা হয় না। সেতুর উভয় প্রান্তে যানবাহনের চাপে দীর্ঘ সাড়ির প্রভাবে টোল কার্যক্রম আপনা আপনি বন্ধ হয়ে যায়। পরে গাড়ির চাপ কমলে কিছুটা স্বাভাবিক হয়। যানবাহনের ক্রমাগত চাপের কারণে শনিবার বিকেল থেকে এ ধরনের সমস্যার কারণে সন্ধ্যার পর টোল কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও রাত ৯টার মধ্যেই তা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়েছে। ঈদের সময় অতিরিক্ত চাপের কারণে টোল কার্যক্রম দিনেরাতে কয়েক দফায় আকস্মিক স্থবির হয়ে পড়ে। বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে এটি বার বার ঘটছে।’

বিবিএ’র অপর নির্বাহী প্রকৌশলী আহসান মাসুদ বাপ্পি বলেন, শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে শনিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত সেতুর ওপর দিয়ে ৩৩ হাজার ৯১২টি যানবাহন পারাপার হয়েছে। এর আগের দিন গত ২৪ ঘণ্টায় ৩১ হাজার ২৫৫টি যানবাহন পারাপার হয়েছে। প্রতিদিনই যানবাহনের চাপ বাড়ায় তা নিয়ন্ত্রণে সেতুর উভয় পাড়ের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন হিমশিম খাচ্ছেন।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button