জাতীয়

পরীমণির পাশের ঘরে হেলেনা

কারাগারে পরীমণির পাশের রুমে রয়েছেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। দুজনকেই কারাগারে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

ঢালিউড অভিনেত্রী পরীমণিকে ১৯ আগস্ট বৃহস্পতিবার ভোরে কাশিমপুর কারাগার থেকে আদালতে পাঠানো হয়। পরে আদালত থেকে শনিবার সন্ধ্যায় ফের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় মহিলা কারাগারে পাঠানো হলে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। এখানে পাশের রুমেই রয়েছেন আলোচিত হেলেনা জাহাঙ্গীর।

এর আগে দ্বিতীয় দফা রিমান্ড শেষে আদালতের নির্দেশে ১৩ আগস্ট পরীমণিকে একই কারাগারে পাঠালে কারাগারের রজনীগন্ধা ভবনে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। এবারও তাকে আগের ভবনে ফের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

মহিলা কারাগার সূত্রে জানা যায়, প্রিজন ভ্যানে করে পরীমণি ঢাকার আদালত থেকে শনিবার সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে কারাগারে পৌঁছে। এর আগে গত বৃহস্পতিবার রিমান্ড শুনানির জন্য তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে পাঠানো হয়েছিল। এ দিন আদালত পরীমণির একদিনের রিমান্ড মঞ্জুরের করেন। পরে সিআইডি একদিন হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের পর শনিবার আদালতের মাধ্যমে তাকে আবার কারাগারে পাঠানো হয়।

এর আগে গত ১৩ আগস্ট আদালতের নির্দেশে তাকে কারাগারে পাঠানো হলে কারাগারের রজনীগন্ধা ভবনে (করোনা সংক্রমণরোধে সরকারি বিধি অনুযায়ী ১৪ দিনের) কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়েছিল। প্রথম ১৩ আগস্ট শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার প্রিজন ভ্যানে করে গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হয়। এর আগে ওই দিন বিকেলে পরীমণির জামিন আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ধীমান চন্দ্র মন্ডল। পরে বিকেল সোয়া ৪টার দিকে আদালত থেকে তাকে গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেয় প্রিজন ভ্যান।

পরীমণিকে কাশিমপুর কারাগারে নিয়ে আসার খবর ছড়িয়ে পড়লে বিকাল থেকেই শতশত উৎসুক জনতা তাকে দেখার জন্য কারাগারের প্রধান ফটকে ভিড় করতে থাকে। সন্ধ্যা ৬টা ৫৫ মিনিটের সময় পরীমণিকে নিয়ে গাড়ি কারাগারে প্রবেশের সময় শেষ পর্যন্ত পরীমণির দেখা না পেয়ে ফিরে যায় উৎসুক জনতা। এ সময়ে কারাফটকে কারারক্ষী ছাড়াও মানুষের ভিড় সামলাতে পুলিশ মোতায়েন করা ছিল। গত ৫ আগস্ট পরীমণিকে বনানী থানার মাদক মামলায় ৪ দিন ও ১০ আগস্ট দ্বিতীয় দফায় ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। গ্রেপ্তারের পর থেকে ১২০ ঘণ্টা তিনি এক কাপড়ে রিমান্ডে ছিলেন।

গত ৪ আগস্ট বিকেলে বনানীর ১২ নম্বর রোডে পরীমণির বাসায় অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব। এ সময় ওই বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ বিদেশি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মদ, মদের বোতলসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য জব্দ করা হয়। ওই দিন রাত সোয়া আটটার দিকে বনানীর বাসা থেকে পরীমণিকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য র‌্যাব সদর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়। গত ৪ আগস্ট রাতে ঢাকার বনানীতে পরীমণির বাসায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরদিন তার বিরুদ্ধে বনানী থানায় মাদক আইনে এ মামলা করা হয়। জব্দ তালিকায় পরীমণির বাসা থেকে ‘মদ এবং আইস ও এলএসডির মতো মাদকদ্রব্য’ উদ্ধারের কথা বলা হয়। এরপর তিন দফায় পরীমণিকে মোট সাত দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button