বিনোদন

ওটিটি প্লাটফর্ম পরিষ্কার করেছে, গল্পই হিরো

মিশা সওদাগর। ঢাকাই চলচ্চিত্রের ভার্সেটাইল অভিনেতা। ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকের কাছে দারুণ জনপ্রিয় এই অভিনেতা। অভিনয় ও অন্যান্য প্রসঙ্গে সময়ের আলোর সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন নিপু বড়ুয়া
কেমন আছেন?
ঘরবন্দি সময় কাটছে। টেলিভিশনের অনুষ্ঠান ও বিভিন্ন প্লাটফর্মের সিনেমা ও ওয়েব সিরিজ দেখছি। তা ছাড়া আমি খেলাপ্রেমী। রাত জেগে অলিম্পিকের খেলা দেখার চেষ্টা করি।
কী কী ওয়েব সিরিজ দেখলেন?
মহানগর দেখে আমার খুব ভালো লেগেছে। আমি এটা নিয়ে আমার অনুভূতিও জানিয়েছি। আসলে অনলাইন প্লাটফর্মে এ ধরনের গল্পই দেখতে পছন্দ করে দর্শক। এ ছাড়া ঈদের আয়োজনে নিজের পুরনো ছবিগুলো দেখেছি। ‘বিশ^ সুন্দরী’ ছবিটা দেখলাম। সিয়ামের অভিনয় ভালো লেগেছে।
ওভার দ্য টপ (ওটিটি) প্লাটফর্মকে কীভাবে দেখছেন?
আমি প্রযুক্তিকে অস্বীকার করছি না। অনলাইন প্লাটফর্মকে স্বাগত জানিয়েছি। আমি চাই এই মাধ্যমটাতে দর্শক নিয়মিত হোক। মাঝে শাপলা মিডিয়ার একটি অ্যাপ উদ্বোধন করেছে। সে অনুষ্ঠানে আমি বলেছিলাম, দর্শক এখন অনেক সচেতন। অল্প বাজেটেও ভালো ভালো গল্পের সিনেমা বানাতে হবে। তা হলে আমাদের অ্যাপগুলো জনপ্রিয়তা পাবে। চলচ্চিত্রের শিল্পীরা কাজ করতে পারবে।
সিনেমা হলের বিকল্প কি ওটিটি?
করোনাকালে বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছে ওটিটি প্লাটফর্ম। কিন্তু সিনেমা হলে বসে সিনেমা দেখার আনন্দ অন্যরকম। সেখানে তালি পড়বে, শিস বাজবে। এই মজা তো ওটিটিতে পাওয়া যাবে না। দুটোই ভিন্ন মাধ্যম। ওটিটিতে যে ছবি ভালো লাগবে। পরবর্তীতে দর্শক সিনেমা হলে গিয়েও ওই ছবি দেখবে। বড়পর্দার আবেদন কখনও কমে না। সিনেমা হলের বিকল্প কখনই ওটিটি নয়। তবে ওটিটি প্লাটফর্ম একটা বিষয় পরিষ্কার করেছে, গল্পই হিরো।
গল্পই যদি হিরো হয় তা হলে তারকা শিল্পীদের অবস্থান কী?
আমাদের দেশে কতজন স্টার শিল্পী আছেন? অথচ ভারতের প্রতিটি প্রদেশে কয়েকজন করে স্টার শিল্পী আছেন। তারা একের পর এক সিনেমা দিয়ে বাজিমাত করছে। সালমান খানের ‘রাধে’ সিনেমা ওটিটিতে মুক্তি দিয়ে পুরো হইচই ফেলে দিয়েছে। সেখানে ছবি দর্শক ৩০০ রুপি দিয়ে দেখেছে। শুধু তাই নয়, তারা নিজেরাও ওটিটি প্লাটফর্মে বিনিয়োগ করছে। তাদের শিল্পীরা কাজ করছে। আমাদের দেশে স্টার শিল্পীর ছবি অনলাইনে হিটও করতে পারেনি। এমনকি কোনো সিনেমার তারকা অনলাইনে বিনিয়োগও করেনি। শিল্পীরা কাজ করবে কীভাবে। এখন শুনি শিল্পীরা গাড়ি-বাড়ি-জমি কিনছেন। অথচ চলচ্চিত্র এখন বন্ধ হওয়ার পথে!
আমাদের চলচ্চিত্রের ভবিষ্যৎ কী?
আমি কখনও বিবাদে জড়াতে চাই না। সবার সঙ্গে মিলেমিশে কাজ করার চেষ্টা করি। মাঝে পরিচালক, প্রযোজক ও শিল্পীদের নিয়ে বৈঠক করেছিলাম। শিল্পীদের পারিশ্রমিক কমিয়ে আনতে সুপারিশও করেছি। সবাই মিলে একটা ভালো সিদ্ধান্তে যেতে পারলে তা হলেই ভবিষ্যৎ ভালো হবে।
সাংগঠনিক কাজের ব্যস্ততা কেমন?
চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি হিসেবে যতটুকু দায়িত্ব রয়েছে তারচেয়ে বেশি কাজ করছি। সহশিল্পীদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি। আর কতবার মানুষের কাছ থেকে আর্থিক সহযোগিতা নেওয়া যায়। সিনেমার কাজ থাকলে শিল্পীরা ভালোভাবেই জীবনযাপন করতে পারত। বলতে গেলে তারকাশিল্পীর কাছ থেকে কোনো ধরনের সহযোগিতা পাইনি। এ সময় সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।
আপনার কয়টি সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায়?
আমার বড় বাজেটের চারটি সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায়। এ ছাড়া অমানুষ ছবিটি অনলাইনে মুক্তি দেওয়া হবে। কাজ চলছে ‘প্রেম প্রীতি বন্ধন’ ও ‘রিভেঞ্জ’ সিনেমার। আরও কয়েকটি সিনেমার কাজ শুরু করব। আমি অনলাইন প্লাটফর্মে কাজ করার প্রস্তুতি নিয়েছি। গল্প ভালো হলেই কাজ শুরু করে দেব।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button