খেলা

জেলে যেতে পারেন এই বার্সা ফুটবলার

গত কয়েক বছরে ফুটবল মাঠে যতটা আলোচনায় এসেছেন, তার চেয়ে বেশি খবরের শিরোনাম হয়েছেন নেতিবাচক কারণে। বলা হচ্ছে তুরস্কের মিডফিল্ডার আরদা তুরানের কথা। বার্সেলোনার এই মিডফিল্ডারের মাথা গরম করার ব্যাপারটি নতুন নয়। গত বছর নৈশক্লাবে মারামারি আর হাসপাতালে গুলি ছুড়ে আলোচনায় এসেছিলেন তিনি। সেই ঘটনার বিচার হলো এত দিনে। তুরানকে পৌনে ২ বছর ৮ মাসের স্থগিত কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছে তুরস্কের আদালত।

গত বছর তুরস্কের এক নৈশক্লাবে গায়ক বার্কে সাহিনের সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন তিনি। মেরে সাহিনের নাক ভেঙে দিয়েছিলেন তুরান। তাতেও ক্ষান্ত হননি বার্সেলোনার এই তারকা। আহত সাহিনকে হাসপাতালে নেওয়া হলে তাঁর পিছু পিছু সেই হাসপাতালেও যান তুরান। হাসপাতালে গিয়ে সাহিন ও তাঁর স্ত্রীর উদ্দেশ্যে ফাঁকা গুলি ছোড়েন তিনি। প্রায় এক বছর ধরে সেই কাণ্ডের শুনানি চলার পর গতকাল রায় দিয়েছে আদালত। দুই বছর আট মাসের কারাদণ্ডাদেশ পেয়েছেন তুরান। তবে এখনই জেলে যেতে হচ্ছে না তাঁকে। আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে কোনো ধরনের অপরাধ করলে আর পার পাবেন না। সরাসরি কারাগারে পাঠানো হবে তাঁকে। প্রতিপক্ষের আইনজীবী সাড়ে ১২ বছরের কারাদণ্ডের আবেদন করেছিলেন।

আরও কঠোর শাস্তি হওয়ার কথা ছিল তাঁর। তবে রায়ের বিপক্ষে আপিল না করায় এ যাত্রায় পার পেয়ে গেছেন তুরান। তুরস্কের আদালত জানিয়েছে, হাসপাতালে গুলি ছুড়ে জনমনে ভীতি সৃষ্টি করা, অবৈধ অস্ত্র নিজের কাছে রাখা এবং ইচ্ছাকৃতভাবে সাহিনকে আহত করা— এই তিন অপরাধের জন্য সাজা পেয়েছেন তুরান। তবে সাহিনের স্ত্রীকে যৌন নিগ্রহের অভিযোগটির কোনো সত্যতা পায়নি আদালত। তাই সে অভিযোগ থেকে খালাস পেয়েছেন তিনি।

এর আগেও হাতাহাতি, সতীর্থ কিংবা ম্যানেজারদের সঙ্গে ঝগড়াঝাঁটির কারণে একাধিকবার খবরের শিরোনাম হয়েছেন তুরান। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের হয়ে বার্সেলোনার বিপক্ষে কোপা ডেল রে’র একটি ম্যাচে লাইন্সম্যানের সিদ্ধান্ত পছন্দ না হওয়ার কারণে তাঁর দিকে বুট ছুড়ে মেরেছিলেন তুরান।

অ্যাটলেটিকোতে থাকার সময়ে প্রতিভাধর মিডফিল্ডার হিসেবে পরিচিতি পান তুরান। সেই প্রতিভায় মুগ্ধ হয়ে ২০১৫ সালে তুরানের পেছনে ৩৪ মিলিয়ন ইউরো ঢালে বার্সা। কিন্তু বার্সায় আসার পর থেকে সুযোগের অভাব ও প্রাপ্ত সুযোগের সদ্ব্যবহার না করার কারণে আস্তে আস্তে বেঞ্চই হয়ে যায় তাঁর ঠিকানা। ৩৬ লিগ ম্যাচে ৫ গোল ও দুটি লিগ শিরোপা জেতার পর গত বছর অনেকটা আড়ালেই বার্সেলোনা থেকে ধারে তুরস্কের ক্লাব ইস্তাম্বুল বাসাকসেহিরে যোগ দিয়েছেন তিনি। থাকবেন এই মৌসুম পর্যন্ত। এর পর আবারও বার্সেলোনায় ফিরবেন এই তারকা। দেশের হয়ে ১০০ ম্যাচ খেলে ১৭ গোল করেছেন তিনি।

তবে শুধু আদালতের দেওয়া শাস্তি পেয়েই পার পাননি তুরান। ক্লাবও চটেছে তাঁর ওপর। তাঁকে চার লাখ ইউরো জরিমানা করেছে ইস্তাম্বুল বাসাকসেহির।

আরো দেখুন

সম্পর্কিত প্রবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button